দেশের সকল সরকারি চাকরির তথ্য সবার আগে মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে মোবাইলে রাখুন Android App: Jobs Exam Alert 

দুই টি-টোয়েন্টিতে সাকিবের পারফরম্যান্সে অবিশ্বাস্য মিল! প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ব্যাট হাতে তিনে নেমে ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন সাকিব। বল হাতে নেন ১ উইকেট। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে সাকিব ১ উইকেট নেওয়ার পর ব্যাটিংয়ে করেন ২৬ রান। আর সিরিজ জয়ের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে সাকিব করলেন ২৬ রান। এ ম্যাচেও ১ উইকেট নিলেন। তাহলে মিলটা কোথায়? ক্রিকেটের রেকর্ড বলছে, টি-টোয়েন্টিতে একই দলের বিপক্ষে পরপর দুই ম্যাচে একই রকম স্কোর গড়েছেন সাকিব! সেটা হলো ১৭ বলে ২৬ রান ও বোলিং ফিগার ৪-০-২২-১।

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে তিনে নেমে সাকিব ১৭ বলে করলেন ২৬ রান, তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতেও একই। দুই বেলায়ই স্ট্রাইক রেট সমান ১৫২.৯৪। সেটাই স্বাভাবিক। মজার বিষয়ে হতো দুই দিনের দুই ইনিংসে বাউন্ডারি সংখ্যাও সমান তার। দুই ইনিংসেই ৪টি করে চার মেরেছেন, ছক্কা হাঁকাননি কোনো। আর দুই ম্যাচেই সাকিব আউট হয়েছেন ইনিংসের নবম ওভারে!

এ তো গেল ব্যাট হাতে পারফরম্যান্সের মিলের কথা। এবার বল হাতে একই কাণ্ড করেছেন সাকিব! দুই ম্যাচেই চার ওভার বল করে ৫.৫০ ইকোনমি রেটে সমান ২২টি করে রান দিয়েছেন সাকিব।

এবার আরেকটি অবিশ্বাস্য দিকটি বলা যাক। দুই ম্যাচে সাকিবের উইকেট নেওয়ার সময়ে মিল রয়েছে। বুধবার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ইনিংসের সাকিব তার চতুর্থ ও শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে মোজেস হেনরিকেসকে বোল্ড করেন। পরের ম্যাচেও বেন ম্যাকডারমটকে ঠিক একইভাবে বোল্ড করেছেন সাকিব। এবারের বলটাও ছিল সাকিবের চতুর্থ ও শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে! ইতিহাসে এমন ভূতুড়ে মিল কেউ দেখেছেন কি? সবার একই কথা, এর আগে কখনো দেখা যায়নি।