দেশের সকল সরকারি চাকরির তথ্য সবার আগে মোবাইলে নোটিফিকেশন পেতে মোবাইলে রাখুন Android App: Jobs Exam Alert 

 

ব্যাটিং ব্যর্থতায় আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আবারও হারল বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ শুরুর আগে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে আবারও হোঁচট খেল বাংলাদেশ। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বোলিং পারফরম্যান্স সাথে থাকলেও এবার সেটিও সাথেনি টাইগারদের।

দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি। অন্যদিকে সাকিব আইপিএল নিয়ে রয়েছেন ব্যস্ত। তবে দলে মোস্তাফিজ থাকলেও কোনো ভালো ফল করতে পারেননি টাইগাররা। 

ব্যাটিং এর শুরুতেই হোঁচট খায় টাইগাররা। আবুধাবিতে গ্যারেথ ডেলানির ৫০ বলে ৮৮ রানের অপরাজিত ইনিংসে আয়ারল্যান্ডের তোলা ৩ উইকেটে ১৭৭ রানের জবাবে ২০ ওভারে ১৪৪ রানে অলআউট হয়ে গেছে বাংলাদেশ। সৌম্য সরকার ও নুরুল হাসান ছাড়া ব্যাটিংয়ে সেভাবে ছাপ রাখতে পারেননি কেউই।

বাংলাদেশ দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান এসেছে সোহানের ব্যাট থেকে। ২৩ বলে ৬ বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৩৮ রান করেছেন এ উইকেটকিপার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান এসেছে সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে। ১ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৩০ বলে ৩৭ রান করেছেন সৌম্য।

এছাড়া সৌম্যর সাথে জুটি বেঁধে আফিফ করেছেন ১৬ বলে ১ বাউন্ডারিতে ১৭ রান।১৭তম ওভারে সোহান আউট হয়ে গেলে জয়ের আশা হারিয়ে ফেলে টাইগার সমর্থকরা। শেষ তিন ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন পড়ে ৫৯ রান। যা টেলএন্ডার তাসকিস ও মোস্তাফিজকে দিয়ে প্রায় অসম্ভব।

নাসুম আহমেদকে শূন্য রানে ফিরিয়ে দিলে পরাজয়ের শঙ্কা আরো বাড়ে। মোস্তাফিজকে নিয়ে শেষ ওভার পর্যন্ত ব্যাট চালিয়ে যান তাসকিন।১২ বলে প্রয়োজন পড়ে ৫৪ রানের। ১৯তম ওভারে ১০ রান নেন তাসকিন-মোস্তাফিজ। শেষ ৬ বলে জয়ের জন্য রান দরকার পড়ে ৪৪। প্রতি বলে ছক্কা হাঁকালেও যেতা অসম্ভব। 

তবু হারের ব্যবধান কমিয়ে আনার চেষ্টা করে গেছেন তাসকিন। শেষ ওভারে আরো ১০ রান যোগ করতে পারেন তাসকিন-মোস্তাফিজ জুটি।এক বল বাকি থাকতে আউট হয়ে যান তাসকিন। ১৪৪ রানে থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। ৩৩ রানে বাংলাদেশকে হারাল আয়ারল্যান্ড। তাসকিন করেছেন ১১ বলে ১৪ রান। ৬ বলে ৭ রানে অপরাজিত ছিলেন মোস্তাফিজ।